লিসবনে বাংলাদেশ দূতাবাসের আয়োজনে মাতৃভাষা দিবস পালিত

লিসবনে বাংলাদেশ দূতাবাসের আয়োজনে মাতৃভাষা দিবস পালিত

পর্তুগাল বাংলানিউজ ডেস্ক: পর্তুগালের লিসবনে বাংলাদেশ দূতাবাসের আয়োজনে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। একুশের প্রথম প্রহরে ভাষা শহীদের শ্রদ্ধা জানাতে  লিসবনের স্থায়ী শহিদ মিনারে প্রবাসী বাংলাদেশী বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন এবং ব্যক্তিবর্গ  উপস্থিত ছিলেন।

মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে শহিদ মিনার প্রাঙ্গণ ব্যানার, পোস্টার ও বর্ণমালা দিয়ে সজ্জিত করা হয়। এছাড়াও শহিদ মিনার প্রাঙ্গণে ভাষা শহিদদের এক চিত্রপ্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। 

অনুষ্ঠানের শুরুতে ভাষা শহিদদের সম্মানে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এরপর মহান শহিদ দিসব ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-এর গুরুত্ব ও তাৎপর্যের ওপর এক আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। 

রাষ্ট্রদূত তারিক আহসান তার বক্তব্যের শুরুতেই ভাষা শহিদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তিনি তৎকালীন উদীয়মান তরুণ রাজনৈতিক নেতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন যিনি ভাষা আন্দোলনে তরুণদের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। তিনি মন্তব্য করেন যে ১৯৫২ সালের ২১ শে ফেব্রুয়ারি  বাংলাদেশের ইতিহাসে একটি গৌরবজ্বল মাইলফলক যা বাঙালি জাতিকে তাদের অধিকার আদায়ের বৈধ সংগ্রামে অনুপ্রাণিত করেছিল এবং যার ফলশ্রুতিতে ১৯৭১ সালে চূড়ান্ত স্বাধীনতা অর্জিত হয়। তিনি আরও বলেন, মাতৃভাষার সার্বজনীন অধিকারের জন্য ভাষা শহিদদের এই সর্বোচ্চ আত্মত্যাগকে স্বীকৃতি দেবার লক্ষ্যে  ১৯৯৯ সালে ইউনেস্কো ২১শে ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসাবে ঘোষণা করে। তিনি আরও বলেনএই বিশ্বের ভাষাগত বৈচিত্র্য রক্ষা এবং বিলুপ্তপ্রায় ভাষাগুলোর সংরক্ষণে বাংলাদেশ ২০১০ সালে ইউনেস্কো-অধিভুক্ত গবেষণাধর্মী প্রতিষ্ঠান “আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট” প্রতিষ্ঠা করে। তরুণ প্রজন্মকে পর্তুগিজ ভাষার পাশাপাশি বাংলা ভাষা চর্চায় উৎসাহিত করতে, রাষ্ট্রদূত প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রতি আহ্বান জানান। এছাড়াও, তিনি ভাষা শহিদদের আত্মত্যাগদেশপ্রেম ও আত্মমর্যাদার আদর্শকে ধারণ করতে সমবেত সকলকে উদ্বুদ্ধ করেন।  

মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা

অনুষ্ঠানে সামাজিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে প্রথমে শহীদ মিনারে ফুলে দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন রাষ্ট্রদূত তারিক আহসান। তারপর স্থানীয় সরকার জয়ন্তা ফ্রেগসিয়া আরিয়ারো এর প্রেসিডেন্ট, পর্তুগালের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি, রাষ্ট্রদূতের নেতৃত্ব দূতাবাসের কর্মকর্তাবৃন্দ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ পর্তুগাল, পর্তুগাল যুবলীগ, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) পর্তুগাল, বৃহত্তর ফরিদপুর এসোসিয়েশন ইন পর্তুগাল, বরিশাল কমিউনিটি অব পর্তুগাল, পর্তুগাল বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ এসোসিয়েশন, ডেইলি শুভ বার্তা, ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেসক্লাব, পর্তুগাল সংগীত শিল্পী সংঘ, পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাব সহ পর্তুগালের বাংলাদেশ কমিউনিটি এর বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন এর নেতৃবৃন্দ ও পর্তুগালে বসবাসরত প্রবাসীগণ।

আলোচনা শেষে, সংক্ষিপ্ত  সাংস্কৃতিক পর্বে  সমবেতকন্ঠে ’আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি’ গানটি পরিবেশন করা হয়। অনুষ্ঠানের শেষে দেশীয় খাবারের মাধ্যমে আমন্ত্রিত অতিথিবর্গকে আপ্যায়িত করা হয়। 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.




পর্তুগাল বাংলানিউজ

প্রধান উপদেষ্টা: কাজল আহমেদ

পরিচালক: মোঃ কামাল হোসেন, মোঃ জহিরুল ইসলাম

প্রকাশক: মোঃ এনামুল হক

যোগাযোগ করুন

E-mail : [email protected]

Portugalbanglanews.com 2019
Developed by RKR BD