দেবীদ্বার লক্ষিপুরে স্কুল ছাত্রীকে ছুরিকাঘাত

দেবীদ্বার লক্ষিপুরে স্কুল ছাত্রীকে ছুরিকাঘাত

পর্তুগাল বাংলানিউজ ডেস্ক:  দেবীদ্বারে এক স্কুল ছাত্রীকে ছুরিকাঘাতে আহত করেছে মুখোশপড়া এক সন্ত্রাসী। ওই ঘটনায় আহত স্কুল ছাত্রী মাকসুদা আক্তার বাদী হয়ে ৫জনকে অভিযুক্ত করে দেবীদ্বার থানায় একটি অভিযোগপত্র দাখিল করেছেন। ঘটনাটি ঘটে শনিবার সকাল সাড়ে ৬টায় উপজেলার ফতেহাবাদ ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামে।

জানা যায়, একটি অনৈতিক কাজের প্রতিবাদ করায় বাড়ি- ঘরে হামলা, প্রতিবাদী স্কুল ছাত্রী মাকসুদা আক্তার ও তার মা’কে মারধর করেছে একদল সন্ত্রাসী। ওই ঘটনায় স্কুল ছাত্রী মাকসুদা আক্তার বাদী হয়ে গত শুক্রবার দেবীদ্বার থানায় একটি সাধারন ডায়েরী (জিডি) করেন।

ঘটনার পরদিন অর্থাৎ গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ৬টায় ওই স্কুল ছাত্রী প্রাইভেট পড়তে বাড়ি থেকে বের হলে মুখোশ পড়া এক সন্ত্রাসী পথিমধ্যে তাকে ছুরিকাঘাতে আহত করে পালিয়ে যায়। ওই ঘটনায় স্কুল ছাত্রী মাকসুদা আক্তার বাদী হয়ে লক্ষিপুর গ্রামের মৃত; আব্দুর রহিম মাষ্টারের পুত্র আজাদ, সফিকুল ইসলামের পুত্র সবুজ, আঃ মতিনের পুত্র পাভেল সহ ৫জনকে অভিযুক্ত করে দেবীদ্বার থানায় একটি অভিযোগ পত্র দাখিল করেছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি জানান, হামলাকারী আজাদ, সবুজ, পাভেল এলাকার চিহ্নীত সন্ত্রাসী এবং মাদক সেবী, ওরা গত শুক্রবার একজন অজ্ঞাত কিশোরীকে বাড়িতে নিয়ে আসলে তার প্রতিতবাদ করেছিল স্কুল ছাত্রী মাকসুদা ও তার মা। ওই ঘটনায় ওদের উপর হামলা করে। হামলার ঘটনায় মাকসুদা আক্তার থানায় জিডি করলে পরিকল্পিতভাবে আজ শনিবার ওই হামলা চালায়।

স্থানীয়রা আরো জানান, উপজেলার লক্ষীপুর গ্রামের মোখলেছুর রহমান’র কণ্যা অষ্টম শ্রেণীতে পড়–য়া ছাত্রী মাকসুদা আক্তার(১৪) প্রাইভেট পড়ার জন্য শনিবার সকালে খলিলপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে লক্ষীপুর গ্রামের ভূঁইয়াবাড়ি সড়কের মাথায় গোমতী নদী ভেরী বাঁধ সংলগ্নে আসার পর, মুখখোশপড়া অজ্ঞাত এক যুবক পেছন দিক থেকে তাকে ঝাপটে ধরে। এসময় ওই ছাত্রী তার হাত থেকে বাচাঁর চেষ্টা করলে তাকে ছুরিকাঘাতে আহত করে, পড়নের জামার বিভিন্ন অংশে কেটে গেলেও শরীরে বড়ধরনের আঘাত করতে পারেনি। ধস্তা ধস্তির এক পর্যায়ে স্কুল ছাত্রী মাকসুদা একটি গর্তে পিছলে পড়ে যায়, ওখান থেকে উঠে চিৎকার করতে করতে পাশ্ববর্তী বাড়িতে আশ্রয় নেয়। তার চিৎকার শোনে বাড়ির কর্তা আব্দুল হাকিম ভূঁইয়া ছুটে আসে এবং ওই যুবকের খোঁজে দৌড়ে আসলেও তাকে আর খুঁজে পায়নি। স্থানীয়রা আহত স্কুল ছাত্রীকে দ্রুত দেবীদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

আহত স্কুল ছাত্রী(১৪) জানায়, সে প্রতি দিনের ন্যায় খলিলপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজী শিক্ষক মাহববুর রহমান’র কাছে ইংরেজী বিষয় প্রাইভেট পড়তে আসে। আজও আসার পথে অনুমান সকাল সাড়ে ৬টায় লক্ষীপুর গ্রামের ভূঁইয়াবাড়ি সড়কের মাথায় গোমতী নদী ভেরী বাঁধ সংলগ্নে হঠাৎ একজন মুখোশপড়া ১৮/১৯ বছর বয়সী একটি ছেলে পেছন দিক থেকে তাকে ঝাপটে ধরে। আমি কিছু বলার আগেই সে আমার মুখ চেপে ধরে টানা হেচড়া শুরু করে। এক পর্যায়ে হাতে থাকা ছুরি বের করে আমাকে ভয় দেখিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে এলোপাথারী পুচাতে থাকে, আমি নিজেকে বাঁচাতে যেয়ে ফসকে সড়কের পাশের একটি গর্তে পড়ে যাই এবং সেখান থেকে উঠে চিৎকার করতে করতে পাশ্ববর্তী বাড়িতে যেয়ে প্রাণ বাঁচাই। ছেলেটি মুখোশ পড়া থাকলেও তার গায়ের রং কালো মাথার চুল কোকড়ানো এবং পরনে কালো প্যান্ট ও সাদা শার্ট ছিল। ওই স্কুল ছাত্রী খলিলপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর যমুনা শাখায় পড়েন।

শনিবার রাত ৮টায় এ ব্যপারে দেবীদ্বার থানার উপ-পরিদর্শক(এস,আই) রবিউল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ওই ঘটনায় ভিক্টিম স্কুল ছাত্রী একটি অভিযোগপত্র থানায় জমা দিয়েছেন। তবে মামলা হিসেবে তা এখনো নথিভূক্ত হয়নি, বাদী হামলাকারীকে সনাক্ত করতে পারেনি। তদন্ত চলছে মামলা প্রক্রিয়াধিন আছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




পর্তুগাল বাংলানিউজ

প্রধান উপদেষ্টা: কাজল আহমেদ

পরিচালক: মোঃ কামাল হোসেন, মোঃ জহিরুল ইসলাম

প্রকাশক: মোঃ এনামুল হক

যোগাযোগ করুন

E-mail : portugalbanglanews24@gmail.com

Portugalbanglanews.com 2019
Developed by RKR BD